25 C
Kolkata
Monday, October 3, 2022
বাড়িখেলাঅন্যান্যডাইনি সন্দেহে এক পরিবারের তিন সদস্যকে রাতভর ঘেরাও

ডাইনি সন্দেহে এক পরিবারের তিন সদস্যকে রাতভর ঘেরাও

আমাদের সমাজে বহুকাল ধরেই নানাধরণের কুসংস্কার চলে আসছে। এখন কিছুটা তা কম হলেও এখনও অনেক জায়গা আছে যেখানে এই কুসংস্কারগুলি মানা হয়। অনেক সময় দেখা যায় এই কুসংস্কারের জন্য বহু নিরীহ মানুষের প্রাণ চলে গেছে। সমাজ কিছুটা উন্নত হলেও কিছু মানুষের মানসিকতা এখনো উন্নত হয়নি। তেমনই এক ঘটনা ঘটে রায়গঞ্জে। ডাইনি সন্দেহে এক পরিবারের তিন সদস্যকে রাতভর ঘেরাও করে রাখার অভিযোগ ওঠে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে রায়গঞ্জ ব্লকের বিরঘই গ্রাম পঞ্চায়েতের পোয়ালতোর কুমারডাঙ্গি গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

গতকাল দুপুরে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা গিয়ে প্রায় পাঁচ ঘণ্টায় চেষ্টায় ওই তিনজনকে উদ্ধার করেন।গ্রামবাসীদের অভিযোগ, গ্রামের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা কদিন ধরে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। কেউ জ্বর, আবার কেউ পেট খারাপে ভুগছেন। গ্রামের বাসিন্দার সন্দেহ, গ্রামের নরেন হাঁসদা নামে এক যুবক, তাঁর দিদি ও স্ত্রীকে ডাইনিতে ধরেছে। যারফলেই এসব ঘটনা ঘটছে। এমন সন্দেহের জেরে গ্রামের কয়েকশো মানুষ বুধবার রাতে তাঁদের বাড়িতে চড়াও হয় এবং রাতভর ওই তিনজনকে ঘেরাও করে রাখা হয়। এই খবর পেয়ে গতকাল দুপুরে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা গ্রামে গিয়ে বাসিন্দাদের বোঝান ও তাদের সাথে কথা বলেন।

অনেক চেষ্টার পর নরেন হাঁসদা, তাঁর দিদি ও স্ত্রীকে উদ্ধার করেন পুলিশ কর্তারা।রায়গঞ্জের বিরঘই গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান রফিকুল ইসলাম জানান, কুসংস্কারের বিষয়ে বাসিন্দাদের বারংবার সচেতন করা হচ্ছে। এখন পরিস্থিতি আপতত নিয়ন্ত্রণে। রায়গঞ্জ থানার আইসি সৌরভ সেন বলেন, “পোয়ালতোরে এক আদিবাসী  দম্পতিকে ঘেরাও করে রেখেছিলেন গ্রামবাসীরা। আমরা গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করে নিয়ে আসি। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।” কিন্তু এখনকার এই উন্নত সমাজে এমন ঘটনা কখনই কাম্য নয়। সময়ের সাথে সাথে মানুষের চিন্তা ধারায় পরিবর্তন হওয়া প্রয়োজন। নয়তো এমনভাবেই অনেক মানুষ নির্যাতনের শিকার হবেন।

ডাইনি সন্দেহে এক পরিবারের তিন সদস্যকে রাতভর ঘেরাও

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: