25 C
Kolkata
Sunday, September 25, 2022
বাড়িসম্পাদকীয়নেতাজির সম্পরকে কিছু জানা অজানা তথ্য

নেতাজির সম্পরকে কিছু জানা অজানা তথ্য

নেতাজির সম্পরকে কিছু জানা অজানা তথ্য

1. নেতাজির নিজস্ব diary তে নিজের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা নথিভুক্ত করেছিলেন সেখানে কোথাও বিয়ের কথা বা কন্যার কথা লেখা নেই।

2. শরৎ বসু বেঁচে থাকাকালীন কোনো চিঠি পাওয়া যায় নি যাতে নেতাজির কোনো সম্পর্কের উল্লেখ পাওয়া যায়। একটি চিঠি যেটা শরৎ বাবুর মৃত্যুর পর সামনে আনা হয়, সেটা নি:সন্দেহে একটি নকল চিঠি, কারণ নেতাজি সারাজীবনে কোনোদিন বাংলায় তার দাদাকে চিঠি লেখেন নি। এবং তারিখ ও স্থান কোনোদিন নিচে লেখেন নি।

3. বিয়ের প্রথম খবর প্রকাশ করা হয় সন্মার্গ পত্রিকায় সেখানে পুত্র সন্তানের কথা বলা হয়। ইতিমধ্যে একটি চিঠি নেতাজির আজাদ হিন্দ সেনানিদের উদ্দেশে একটি চিঠি পাওয়া যায় যাতে তিনি কথা প্রসঙ্গে লিখেছেন “I have no son of my own, you are my… ” (চিঠিটা কটকের বাসভবনে রক্ষিত)। তাই পুত্র পাল্টে হঠাৎ কন্যা করা হয়।

কিছু অজানা তথ্য

4. প্রথম প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সন্তানের যে জন্মকাল দেয়া হয়েছিল, হিসাব করে দেখা যায় যে, সেটা কখনোই সম্ভব না, কারণ নেতাজি সেই হিসেবে অনুযায়ী তখন কাবুলে। পরে সাল বদলানো হয়।

5. আনন্দ বাজার পত্রিকায় 5 সময়ে 5 রকম বিয়ে ও জন্মের তারিখ লেখা হয়েছে।

6. 1939 সালে চিনে যাবার ভিসার আবেদনপত্রে নেতাজি নিজে সই করে লিখেছেন তিনি বিবাহিত নন তার কোনো সন্তান নেই।

7. বা মাও কলকাতায় ভাষণ দেওয়ার সময় বলেন তিনি নেতাজিকে 1944 সালে জিগেস করেছিলেন নেতাজি কবে বিয়ে করবেন। নেতাজি বলেছিলেন “আগে ভারত স্বাধীন হোক”। বা মাও এর অফিসিয়াল website এ এই ভাষণটির transcript পেয়ে যাবেন।

8. কোনো ব্রিটিশ বা আমেরিকান file এ নেতাজির কোনো স্ত্রী বা কন্যার কথা উল্লেখ পাওয়া যায় নি। যখন এই খবরটা প্রচলিত হয় এবং অমিয় বসু নেহেরুর কিছু চিঠি intercepted হয় ব্রিটিশদের দ্বারা, তখন একজন অফিসার নোট দেন, “is it due to destruction of files that we have no document regarding this and this….” তাদের কোনো গোয়েন্দা দফতর এর খবর পায়ে নি অথচ নেতাজি 100 টা প্রেমপত্র লিখে পাঠালেন দেশ বিদেশ থেকে সাধারণ পোস্টে আর একটাও ইন্টারসেপ্টেড হলো না সেটা হাস্যকর।

9. নেহেরু হঠাৎ কেন এত সদয় এদের প্রতি? নিজে কেরানির মত টাকার ব্যবস্থা করে তাকে পাঠাতেন? নিজে খোঁজ নিতেন টাকা গেলো কিনা। প্রকাশিত file এ দেখলেই দেখতে পাবেন।

10. নেতাজির সঙ্গে যেই ছবিগুলো এমিলি বলে চালানো হয় তাতে নুন্যতম 2 জন মহিলাকে এমিলি বলে চালানো হয়। একই বছরে badgastein এ তোলা ছবিতে 2 জন মানুষের চেহারার এতো পার্থক্য হওয়া সম্ভব নয়।

11. গুমনামি বাবা নেতাজির বিয়ের প্রসঙ্গ উড়িয়ে দেন এরম “ইতর আলোচনা” থেকে বিরত থাকতে বলেন। নিজেও ঐ চিঠির প্রসঙ্গে বলেন যে তিনি কোনোদিন তার দাদাদের বাংলায় চিঠি লেখেন নি। তারিখ ও স্থান চিঠির নীচে লেখেন নি। গুরুজনদের লেখা চিঠির ওপর মাঙ্গলিক চিহ্ন থাকতো। চিঠিটা forgery.

অজানা তথ্য

12. সত্যরঞ্জন বক্সী বসুমতী পত্রিকায় লেখেন শরৎ বসু Vienna থেকে ঘুরে এসেও বিশ্বাস করেন নি এমিলিকে নেতাজি বিয়ে করেছেন। ওটা প্রবঞ্চনা বলে উল্লেখ করেন। কুৎসা রটানো বন্ধ করার আবেদন জানান।

13. নকশাল নেত্রী মারি টাইলার যাকে বিহারের জঙ্গল থেকে গ্রেপ্তার করে কারাবাস দেওয়া হয় ইন্দিরা গান্ধীর আমলে তিনি বলেন যে তার বাবা নেতাজির ঘনিষ্ঠ ছিলেন, তিনি নিজে এমিলির বাড়িতে দেখা করতে গেছিলেন। তার একবারও মনে হয় নি উনি নেতাজির স্ত্রী। ওনার বাড়িতে একটি নেতাজির ছবি পর্যন্ত ছিল না। উনি কোনো একটি চক্রান্তের স্বীকার।

14. সুরেশ চন্দ্র বসু নেতাজির বিয়ের গল্পকে জওহরলাল নেহেরুর একটি চক্রান্ত বলে দাবি করেন পূর্ণিয়ার একটি সভায়।

নেতাজির সম্পরকে কিছু জানা অজানা তথ্য

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: