25 C
Kolkata
Friday, February 3, 2023
বাড়িদেশ বিদেশভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক দৃঢ় করার উদ্দেশ্য শাহবাজ শরিফের

ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক দৃঢ় করার উদ্দেশ্য শাহবাজ শরিফের

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর মন্ত্রিত্ব লাভের পরই ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক দৃঢ় করার উদ্দেশ্যে এবার প্রথম পদক্ষেপ গ্রহন করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ (Shehbaz Shariff)। পাক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজ শপথগ্রহণের পর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শুভেচ্ছা বার্তায় পাল্টা উত্তরে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। নবনির্বাচিত পাক প্রধানমন্ত্রী জম্মু-কাশ্মীর সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সংঘাত ইস্যুতে শান্তিপূর্ণ সমাধানের কথা উল্লেখ করেছেন। সংশ্লিষ্ট মহলের একাংশ মনে করছে পাকিস্তানের গদিতে বসার পরই জম্মু-কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে শাহবাজের এই সরব হওয়া কূটনৈতিক দিক থেকে উল্লেখযোগ্য। সোমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইটে পাক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফকে শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছিলেন, ”পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফকে অভিনন্দন। ভারত শান্তি ও স্থিতাবস্থা চায়, সন্ত্রাস-মুক্ত অঞ্চল চায়, যাতে আমরা উন্নয়নে জোর দিতে পারি ও আমাদের নাগরিকদের কল্যাণার্থে জোর দিতে পারি”।

পাক প্রধানমন্ত্রী টুইটে জানান, ”অভিনন্দন প্রেরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ। ভারতের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ ও সহযোগিতামূলক সম্পর্ক চায় পাকিস্তান। জম্মু-কাশ্মীরের মতো শান্তিপূর্ণ সমাধান অপরিহার্য। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাকিস্তানের আত্মত্যাগ সর্বজনবিদিত। আমাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে জোর দেওয়া দরকার”। উল্লেখ্য, সোমবার পাকিস্তানের ২৩ তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন শাহবাজ শরিফ। সম্প্রতি পাকিস্তানে ইমরান খান সরকারের বিনাশ হয়েছে। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শাহবাজ শরিফ অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলেন ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পেশের ক্ষেত্রে। অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (PTI)-এর সমর্থকরা শাহবাজ শরিফকে কিছুতেই মানতে পারছে না।

পঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার সঙ্গে পাঞ্জাব প্রদেশের দায়িত্ব সামলান

পিটিআই-অএর পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ”যাঁর বিরুদ্ধে ১৬০০ কোটি এবং ৮০০ কোটির দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে, তিনি যদি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হন, তাহলে দেশের পক্ষে এর থেকে বড় অসম্মান আর কিছুই হতে পারে না। আর সেই কারণেই আমাদের দলের সদস্যরা ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সদস্য পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন।” প্রসঙ্গত,শাহবাজ পাকিস্তান মুসলিম লিগ (নওয়াজ)-এর দায়িত্ব কার্যত একার কাঁধে তুলে নেন দুর্নীতিতে অভিযুক্ত প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ দেশ ছেড়ে পালানোর পর। শাহবাজ ইমরান সরকারের আমলে বিরোধী দলনেতার ভূমিকা পালন করেছেন। প্রশাসক হিসেবেও শাহবাজের ভূমিকা এক উল্লেখযোগ্য স্থানাধিকারী। তিনবার পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার সঙ্গে পাঞ্জাব প্রদেশের দায়িত্ব সামলান নওয়াজের ভাই শাহবাজ। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজের নামই চর্চার শীর্ষে ছিল যখন ইমরান খান সরকারকে ঘিরে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছিল। শেষমেশ সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে পাকিস্তানের কুর্সিতে বিরাজ করছেন শাহবাজ।

ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক দৃঢ় করার উদ্দেশ্য শাহবাজ শরিফের

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: