25 C
Kolkata
Monday, October 3, 2022
বাড়িদেশ বিদেশরাশিয়াকে মানবাধিকার সংগঠন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে

রাশিয়াকে মানবাধিকার সংগঠন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে

ইউক্রেনের উপর সামরিক আগ্রাসনের জন্য এবার রাশিয়াকে রাষ্ট্রসংঘের হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল থেকে বরখাস্ত করা হল। ইউক্রেনের উপর অকারণে এই অমানবিক হামলার ফলেই রাশিয়াকে এই মানবাধিকার সংগঠন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এমন ঘোষণার পরই মানবাধিকার কাউন্সিল থেকে পদত্যাগ করে মস্কো। কিন্তু আগের মতোই গোটা প্রক্রিয়া ভোটাভুটি থেকে বিরত ছিল ভারত। এর অনেকআগেই ভারত তার অবস্থান জানিয়ে দিয়েছিল।এদিন ইউক্রেনের উপর ভয়াবহ হামলা চালানোর অভিযোগে রাশিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসংঘে ভোটাভুটি হয়। জেনারেল অ্যাসেম্বলির ৯৩টি সদস্য দেশ রাশিয়াকে বরখাস্তের পক্ষে ভোট দিয়েছে এবং ২৪টি সদস্য দেশ রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে।কিন্তু অপরদিকে ৫৮টি দেশ ভোটাভুটি থেকে বিরত থেকেছে। সেই তালিকায় ছিল ভারতও। রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস ত্রিমূর্তি রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভোটদানের প্রক্রিয়ায় বিরত থাকার খবর দিয়েছেন।

হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল থেকে রাশিয়াকে বরখাস্ত করার প্রক্রিয়া থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত

ভারত সরকারের তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে, হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল থেকে রাশিয়াকে বরখাস্ত করার প্রক্রিয়া থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। ত্রিমূর্তি জানানন, ভারত হিংসার অবসান চায়। ফলে কারোর পক্ষেই ভারত নেই। কারণ যুদ্ধ কখনই কোনো কিছুর সমাধান হতে পারেনা।এরমধ্যে ইউক্রেনের বুচ্চাতে গণহত্যার ঘটনায় ভারত উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এটি নিয়ে ভারত তদন্তেরও দাবি তুলেছে। এমন পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন উন্নয়নশীল দেশের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাবও আনা হয়েছে। শুধু তাই নয় ,যুদ্ধবিধ্বস্ত দুই দেশের খাদ্য ও প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর অভাব নিয়েও ভারত চিন্তিত। টিএস ত্রিমূর্তী রাষ্ট্রসংঘের ভেতরে ও বাইরে সকল দেশকে একযোগে কাজ করার আহ্বানও জানিয়েছেন।ইউক্রেনের পক্ষ থেকে বারংবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে।

ইউক্রেনের রাস্তায় গণহত্যার ছবি তুলে ধরা হচ্ছে। রাশিয়ার সেনার বর্বরতার চিত্র সকলের সামনে দেখানো হচ্ছে।ইউক্রেনের সুমিতেও অন্তত তিন জন সাধারণ নাগরিকের লাশ উদ্ধার করেছে ইউক্রেনের সেনা। তারা অভিযোগ করছে মেরে ফেলার আগে এদের উপরেও ভয়ঙ্কর অত্যাচার চালায় রাশিয়ার সেনা। এই প্রসঙ্গে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি রাষ্ট্রপুঞ্জকে বলেন, ”দায়েশ বা আইএস এর মতো সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে বুচার রুশ ফৌজের কোনও পার্থক্য নেই। পার্থক্য একটাই যে, এখানে বর্বরতা চালাচ্ছে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের এক সদস্য। ইউক্রেনে কী চলছে, তার পূর্ণাঙ্গ বিবরণ এখনও দুনিয়ার সামনে আসেনি।” ন্যাটো উদ্বেগ প্রকাশ করে জানিয়েছে, ইউক্রেনের দখলে থাকা অবশিষ্ট থাকা অংশে আগামী দিনে আরও ভয়ঙ্কর ধ্বংসলীলা চালাবে রাশিয়া।

রাশিয়াকে মানবাধিকার সংগঠন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: