25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িদেশ বিদেশভারতের আসল গনতান্ত্রীক স্বাধীনতা, ২৬ সে জানুয়ারী

ভারতের আসল গনতান্ত্রীক স্বাধীনতা, ২৬ সে জানুয়ারী

 

ভারতের আসল গনতান্ত্রীক স্বাধীনতা , ২৬ সে জানুয়ারী ১৯৫০ ইতিহাস অনেকেই ভালো করে হয়তো পড়তে পারেননি, বা পড়লেও বুঝতে পারেননি , বা আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা হয়তো সে ইতিহাস কে একটু ঘুরিয়ে আমাদের পড়িয়েছিলেন ।। সাধারণ মানুষ খুব আনন্দ করে নাচানাচি করেন যে , ১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি , স্বাধীনতা পেয়েছি !!!না !!! ব্যাপারটা একদমই তা নয় ।। ব্রিটিশ রা, ১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট আমাদের, সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেয় নি, তারা আমাদের স্বাধীনতা হস্তান্তর করেছিলো ।। ১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্ট ভারত ব্রিটিশ কমনওয়েলথের অন্তর্গত একটি স্বাধীন অধিরাজ্য রূপে আত্মপ্রকাশ করেছিল।১৯৫০ সালে গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র ঘোষিত হওয়ার পূর্বাবধি , “ষষ্ঠ জর্জ”, (অ্যালবার্ট ফ্রেডেরিক আর্থার জর্জ), ছিলেন এই দেশের রাজা।একই সঙ্গে ভারত বিভাগের ফলে ব্রিটিশ ভারতের উত্তর-পশ্চিম ও পূর্বাংশ নিয়ে পৃথক পাকিস্তান অধিরাজ্য স্থাপিত হয়।

স্বাধীনতা লাভের প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হয় যুক্তরাজ্যের সংসদে ভারতীয় স্বাধীনতা আইন পাশ হওয়ার মাধ্যমে

দেশভাগের ফলে ভারত ও পাকিস্তানের প্রায় ১ কোটি মানুষকে দেশান্তরী হতে হয় এবং প্রায় ১০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু ঘটে।প্রথমে লর্ড লুই মাউন্টব্যাটেন, ও পরে, চক্রবর্তী রাজাগোপালাচারী, ভারতের গভর্নর জেনারেল নিযুক্ত হন। জওহরলাল নেহেরু হন দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী এবং সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল হন ভারতের প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি ভারত একটি, গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয় এবং একটি নতুন সংবিধান প্রবর্তিত হয়।এই সংবিধান অনুযায়ী ভারতে একটি সম্পূর্ণ স্বাধীন, ধর্মনিরপেক্ষ, ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসাবে, বিশ্ব দরবারে, প্রতিষ্ঠিত হয়।ভারতীয় সংবিধান সভার [ বর্তমানের পার্লামেন্ট ], তৎকালীন ৩০৮ জন সদস্য, ১৯৫০ সালের ২৪ জানুয়ারি সংবিধানের দু’টি হস্তলিখিত কপিতে সই করেন।এর দু’দিন পর ২৬ জানুয়ারি ভারতীয় সংবিধান কার্যকর হয়।

আনুষ্ঠানিকভাবে সার্বভৌম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে ভারত। এই দিনটিই Republic Day বা প্রজাতন্ত্র দিবস বা সাধারণতন্ত্র দিবস হিসাবে পালিত হয়।সেদিন থেকে, ভারতবর্ষের সম্পূর্ণ নাম হল, : ” সার্বভৌম সমাজতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক সাধারণতন্ত্র ভারতবর্ষ ।। “ভারতে সাধারণতন্ত্র দিবস বা প্রজাতন্ত্র দিবস পালিত হয় ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি তারিখে , ভারত শাসনের জন্য, ব্রিটিশ সরকার এর লিখিত, ১৯৩৫ সালের ভারত সরকার আইনের পরিবর্তে, স্বাধীন গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের, ভারতীয় সংবিধান কার্যকরী হওয়ার দিন ।।এটি ভারতের একটি জাতীয় দিবস। ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি ভারতীয় গণপরিষদ সংবিধান কার্যকরী হলে, ভারত একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত হয়।এই স্বাধীন সংবিধান কার্যকরী হওয়ার ঠিক দু মাস আগে, ১৯৪৯ সালের ২৬ নভেম্বর, তৎকালীন গণপরিষদ কর্তৃক ভারতের, তৎকালীন হস্তলিখিত সংবিধান অনুমোদিত হয়।

এই দিনটি ভারতের তিনটি জাতীয় দিবসের অন্যতম

২৬ জানুয়ারি দিনটিকে সংবিধান কার্যকর করার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল কারণ , ১৯৩০ খ্রিঃ ঐ একই দিনে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস কর্তৃক পূর্ণ স্বরাজের সংকল্প ঘোষিত ও গৃহীত হয়েছিল।এই দিনটি ভারতের তিনটি জাতীয় দিবসের অন্যতম। অন্য দু’টি জাতীয় দিবস যথাক্রমে স্বাধীনতা দিবস ও গান্ধী জয়ন্তি এই দিন সারা ভারতেই নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কেন্দ্রীয় কুচকাওয়াজের অনুষ্ঠানটি হয় নতুন দিল্লির রাজপথে। ভারতের রাষ্ট্রপতি এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন।পুনশ্চ :আরেকবার মনে করিয়ে দিতে চাই, ১৯৪৭ এর ১৫ আগস্ট ঠিক কি হয়েছিলো, আর ১৯৫০ এর ২৬ সে জানুয়ারী ঠিক কি হয়েছিলো !!!১৯৪৭ এর ১৫ ই আগস্ট মধ্যে রাতে, অর্থাৎ রাত ১২ টা তে, স্বাধীনতা লাভের প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হয় যুক্তরাজ্যের সংসদে ভারতীয় স্বাধীনতা আইন পাশ হওয়ার মাধ্যমে।

এর ফলে , “ব্রিটিশ ভারত”, ভেঙে গিয়ে , “কমনওয়েলথ অফ নেশনস”-এর অন্তর্গত, “অধিরাজ্য” হিসেবে “দু’টি স্বাধীন রাষ্ট্র”, যথাক্রমে, “ভারত বর্ষ” বা, “হিন্দুস্থান” বা “ইন্ডিয়া” ও “পাকিস্তানে”র জন্ম হয়।১৫ই আগস্ট ১৯৪৭ এ ভারত স্বাধীন হলেও “দেশের প্রধান”, হিসেবে তখনও বহাল ছিলেন, ” ব্রিটিশ রাজ ষষ্ঠ জর্জ “, এবং “লর্ড লুইস মাউন্টব্যাটেন” ছিলেন এই “অধিরাজ্যের”, ” গভর্ণর জেনারেল। “তখনও দেশে কোনো স্থায়ী সংবিধান ছিল না;ঔপনিবেশিক ভারত শাসন আইনে কিছু রদবদল ঘটিয়েই দেশ শাসনের কাজ চলছিল।১৯৪৭ সালের, ২৮শে আগস্ট,হিন্দুস্থানের একটি “স্বাধীন স্থায়ী সংবিধান” রচনার জন্য , “ড্রাফটিং কমিটি ” গঠন করা হয়।এই “ড্রাফটিং কমিটি”র, “চেয়ারম্যান” ছিলেন,”বাবা সাহেব ভীমরাও রামজি আম্বেডকর।”৪ঠা নভেম্বর ১৯৪৭ তারিখে, ড্রাফটিং কমিটি , একটি খসড়া সংবিধান প্রস্তুত করে গণপরিষদে জমা দেয়।

 https://bocnews24.com/real-democratic-independence-of-india-26th-january/  https://bocnews24.com/real-democratic-independence-of-india-26th-january/

২৬শে জানুয়ারি থেকে ভারতের সংবিধান কার্যকর হবে এবং সেদিন থেকে, প্রজাতন্ত্র ভারতবর্ষ বা Republic of India হিসেবে পরিচিত হবে

চূড়ান্তভাবে সংবিধান গৃহীত হওয়ার আগে,২ বছর, ১১ মাস, ১৮ দিন ব্যাপী, সময়ে গণপরিষদ এই খসড়া সংবিধান আলোচনার জন্য ১৬৬ বার অধিবেশন ডাকে।এই সমস্ত অধিবেশনে জনসাধারণের প্রবেশের অধিকার ছিল।১৯৪৯ সালের ২৬শে নভেম্বর, সর্বসম্মতি তে, স্বাধীন ভারতের সংবিধান গৃহীত হবার পর, ঠিক করা হয়, ১৯৩০ সালের ২৬শে জানুয়ারি প্রথম স্বাধীনতা দিবস পালনের সেই দিনটিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ১৯৫০ সালের ২৬শে জানুয়ারি থেকে ভারতের সংবিধান কার্যকর হবে এবং সেদিন থেকে, প্রজাতন্ত্র ভারতবর্ষ বা Republic of India হিসেবে পরিচিত হবে।বহু বিতর্ক ও কিছু সংশোধনের পর ২৪ শে জানুয়ারি ১৯৫০ এ গণপরিষদের ৩০৮ জন সদস্য চূড়ান্ত সংবিধানের হাতে-লেখা দু’টি নথিতে (একটি ইংরেজি ও অপরটি হিন্দি) স্বাক্ষর করেন।এর দু’দিন পর , অর্থাৎ ১৯৫০ সালের ২৬ সে জানুয়ারী, দেশব্যাপী এই সংবিধান কার্যকর হয়।এই হচ্ছে, আমাদের সার্বভৌম গনতান্ত্রীক প্রজাতন্ত্রের স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস ।।জয় হিন্দ , বন্দে মাতরম ।

ভারতের আসল গনতান্ত্রীক স্বাধীনতা, ২৬ সে জানুয়ারী

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: