25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িরাজনীতিলীনা জানান শান্তিনিকেতনে নাবালিকাকে চারজন নয় একজন যৌন নির্যাতন চালিয়েছে

লীনা জানান শান্তিনিকেতনে নাবালিকাকে চারজন নয় একজন যৌন নির্যাতন চালিয়েছে

শান্তিনিকেতনে চড়ক মেলায় আশা নাবালিকাকে চারজন ধর্ষণ করেনি, একজন তার উপর যৌন নির্যাতন চালিয়েছে। রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন লীনা গঙ্গোপাধ্যায় আজ বোলপুরে সার্কিট হাউসে নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলে বেরিয়ে সাংবাদিকদের এই কথা জানান। লীনাদেবী বলেন, ওই নাবালিকা তাঁকে বলেছে, চারজন অপহরণ করেছিল তার মধ্যে তিনজন তার সমবয়সি। তাদের বাধা দিতে পারলেও একজনকে বাধা দিতে পারেনি নাবালিকা। ছেলেটি তার উপর নির্যাতন চালিয়েছে। শান্তিনিকেতনে নাবালিকা যে গণধর্ষিতা হয়নি, সেটা রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সনের মন্তব্বের মাধ্যমে স্পষ্ট। লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের বক্তব্যের বিরোধিতা করে রাজ্য বিজেপির মহিলা মোর্চার দাবি করেন, নির্যাতিতার বয়ান বদলানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। ওই নাবালিকা বৃহস্পতিবার রাতে এক নাবালকের সঙ্গে মেলায় গিয়েছিল এবং মেলা দেখে ফেরার সময় পথে ফাঁকা জায়গায় তারা গল্প করছিল।

সেইসময় কয়েকজন তাদের ওপর ছোরাও হয়। নাবালককে মারধর করে নাবালিকাকে অপহরণ করে। অভিযোগ চারজন মিলে নদীর চরে ফাঁকা জায়গায় তাকে গণধর্ষণ করে। বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী, লীনা গঙ্গোপাধ্যায় সহ রাজ্য মহিলা কমিশনের সদস্যরা নাবালিকার সঙ্গে দেখা করতে রবিবার বোলপুর সার্কিট হাউসে আসেন। রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন পুলিশ সুপারের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখানে তিনি নির্যাতিতা ও তার মায়ের সঙ্গে কথা বলেন। তারপর সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। বলেন, “মেয়েটি বলল, চারজনের তিনজন নাবালক ছিল। তাদের সরাতে পেরেছিলাম। একজন নির্যাতন করেছে। মেয়েটির মেডিক্যাল রিপোর্ট পেয়েছি। আজ সে যা বলল, তার সঙ্গে মেডিক্যাল রিপোর্ট মিলছে কি না দেখব।”

প্রশ্নের উত্তরে লীনাদেবী বলেন, পুলিশ তদন্ত করছে

অভিযুক্তরা কেন ধরা পড়ল না ঘটনার পর ৪৮ ঘণ্টা কেটে গেলেও এই প্রশ্নের উত্তরে লীনাদেবী বলেন, পুলিশ তদন্ত করছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার প্রসেঙ্গে বীরভূমের পুলিশ সুপার বললেন, নাবালিকার কথা মতো স্কেচ আঁকা হয়েছে। সেই অনুসারে তদন্ত শুরু হয়েছে। সুত্র মারফত খবর, আজ নাবালিকার গোপন জবানবন্দী নেওয়া হয়েছে। রাজ্য বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী তনুজা চক্রবর্তী রবিবার বোলপুরে আসেন। তিনি নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পাননি। কিন্তু নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি অভিযোগ করেন, মূল অপরাধীদের ঢাকতে নির্যাতিতার বয়ান বদল করা হচ্ছে। তিনি এই ঘটনা নিয়ে জাতীয় মহিলা কমিশনের কাছে অভিযোগ করবেন বলে জানান। তিনি দাবি জানান গত কয়েকদিনে রাজ্যে যতগুলি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে, সবক্ষেত্রে সিবিআই তদন্তের।

লীনা জানান শান্তিনিকেতনে নাবালিকাকে চারজন নয় একজন যৌন নির্যাতন চালিয়েছে

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: