25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িরাজ্যরাত ৮টার মধ্যে মানিককে সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

রাত ৮টার মধ্যে মানিককে সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

টেট দুর্নীতি মামলায় (Tate corruption case) আরও বিপাকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য (Manik Bhattacharya)। মঙ্গলবারই তাকে হাজিরার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট (Calcutta High Court)। মঙ্গলবার রাত ৮ টার মধ্যে মানিক ভট্টাচার্যকে সিবিআই (CBI) দফতরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। মঙ্গলবার এমনটাই নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Abhijit Gangopadhyay)। মঙ্গলবার বিচারপতি নির্দেশ দেন তদন্তে অসহযোগিতা করলে মানিককে নিজেদের হেফাজতেও নিতে পারবে সিবিআই।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক টেট মামলায় নির্ধারিত সময়ের আগেই ওএমআর শিট নষ্ট করার অভিযোগে কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি পর্ষদ। সেই সময় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ছিলেন মানিক ভট্টাচার্য। ওএমআর শিট নষ্ট করার অভিযোগের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই মঙ্গলবার মানিককে সিবিআই দফতরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিন আদালতের তরফে জানানো হয় যে, মঙ্গলবার রাত ৮টার মধ্যে মানিক ভট্টাচার্যকে সিবিআই দফতরে হাজিরা দিতে হবে। তিনি যদি তদন্তে সহযোগিতা না করেন, তাহলে সিবিআই তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করতে পারবে। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার উত্তরপত্র নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। প্রায় ১২ লক্ষের বেশি ওএমআর শিট নষ্ট করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

এই মামলায় অ্যাড হক কমিটির কী ভূমিকা ছিল, তা খতিয়ে দেখতে মানিক ভট্টাচার্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে সিবিআই। একইসঙ্গে আদালতের তরফে মানিক ভট্টাচার্যকে কেন ওই পদে নিয়োগ করা হয়েছিল, কীভাবে তাঁকে বাছাই করা হয়েছিল এই সকল তথ্য সিবিআইকে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার উত্তরপত্র কেন নষ্ট করা হল, সে বিষয়ে তদন্ত করে আগামী এক মাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে হাইকোর্টে রিপোর্ট জমা করতে হবে। এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ১ নভেম্বর। এদিন বিচারপতি বলেন, ‘সিবিআই আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করবে এটা শুধু আদালতই চায় না, নাগরিক সমাজও তাদের ওপরে ভরসা রাখবে বলে আশা করি।’

রাত ৮টার মধ্যে মানিককে সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: