25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িখেলাঅন্যান্যজানেন কালী পুজোর আগের দিন কেন ভূত চতুর্দশী পালন করা হয়?

জানেন কালী পুজোর আগের দিন কেন ভূত চতুর্দশী পালন করা হয়?

কালী পুজোর (Kali Pujo) আগের দিন বাংলার ঘরে ঘরে ভূত চতুর্দশী (Bhoot Chaturdashi) পালন করা হয়। এটি একটি বাঙালি হিন্দু উৎসব। আশ্বিন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশীর দিন বা দীপান্বিতা কালী পুজোর আগের দিনটিকে ভূত চতুর্দশী বলা হয়। এই দিন বাংলার প্রতি মানুষ নিজেদের বাড়িতে চৌদ্দ প্রদীপ সাজান। এই দিনেই চোদ্দ শাক খাওয়ার রীতি রয়েছে। প্রচলিত কথা অনুযায়ী এই দিন আমাদের চারদিকে প্রচুর ভূত-প্রেত ঘুরে বেড়ায়। মনে করা হয় এই দিন সন্ধ্যেবেলা প্রদীপ জ্বালিয়ে অশুভ শক্তি নাশ করা হয়।

হিন্দু ধর্মের মানুষরা বিশ্বাস করে মৃত পূর্ব পুরুষরা আশ্বিন মাসের কৃষ্ণ চতুর্দশীর দিন মর্ত্যে আসেন। তাদের আনন্দে রাখতে এবং অতৃপ্ত আত্মার অভিশাপ দূর করতে চোদ্দ প্রদীপ জ্বালানো হয়। হিন্দু ধর্মানুসারে মৃত্যুর পর মানব দেহ পঞ্চভূতে বিলীন হয়ে যায়। তারপর তা পাঁচ উপাদানের মধ্যে মিশে থাকেন। তাই প্রকৃতি থেকে সংগ্রহ করে ১৪ রকমের শাক মৃত ১৪ পুরুষের উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করা হয়। শাকগুলি হল পালং, লাল , সুষণি, কুমড়ো, পাট, মেথি, ধনে, পুঁই, নোটে, মূলো, কলমি, গিমে, সরষে এবং লাউ শাক।

এদিন ১৪ শাক ধোয়ার পর সেই জল বাড়ির প্রতিটি কোনে ছিটিয়ে দেওয়ার রীতি রয়েছে। প্রেত আত্মা ও অশুভ শক্তি বিনাশ করতে বাঙালি গৃহস্থরা ভূত চতুর্দশীর দিন সন্ধ্যেবেলা বাড়িতে চোদ্দ প্রদীপ জ্বালান। বহুকাল ধরে এই নিয়ম চলে আসছে। পুরাণ মতে, ভূত চতুর্দশীর দিন রাতে শিবভক্ত বলি তাঁর অনুচর ভূতদের সাথে নিয়ে মর্ত্যে পুজো নিতে আসেন। প্রসঙ্গত, এই বছর ভূত চতুর্দশী ২৩ অক্টোবর অর্থাৎ আজ পালিত হবে। রবিবার সন্ধ্যা ০৬.০৩ মিনিট থেকে সোমবার বিকাল ০৫.২৭ মিনিট পর্যন্ত থাকবে।

জানেন কালী পুজোর আগের দিন কেন ভূত চতুর্দশী পালন করা হয়?

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: