25 C
Kolkata
Monday, November 28, 2022
বাড়িদেশ বিদেশরাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক চাপ আরও বাড়বে আমেরিকা সহ সহযোগী দেশ

রাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক চাপ আরও বাড়বে আমেরিকা সহ সহযোগী দেশ

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ এখন কিছুটা বিরতি হয়েছে। তবে এই অমানবিক যুদ্ধের ফলে ইউক্রেন অনেকটাই ক্ষতিপ্রাপ্ত হয়। অনেকে দেশ এই যুদ্ধের বিরোধিতা করেছে এবং রাশিয়াকে বোঝানোরও চেষ্টা করেছে কিন্তু তাতে কোনো লাভ হয়নি। যার ফলে এবাট এবার ‘বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত দেশ’ এর স্বীকৃতি হারাতে চলেছে মস্কো। জানা যাচ্ছে , আমেরিকা সমেত গ্রূপ অফ সেভেন (Group of Seven) এর সদস্য রাষ্ট্রগুলি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন সম্মিলিত ভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।বিশেষজ্ঞদের মতে ,এর জেরে রাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক চাপ আরও বাড়বে । কারণ বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত দেশের তালিকায় নাম থাকলে বিদেশের বাজারে রুশ পণ্যের দাম নাগালের মধ্যে রাখা সম্ভব।

যারফলে ক্রেতাদের পক্ষে এই ধরনের পণ্য কেনার প্রবণতা বাড়বে। এরজন্য লাভবান হয় পণ্য উৎপাদনকারী এবং সরবরাহকারী রাষ্ট্র। এতদিন অবধি রাশিয়া সংশ্লিষ্ট দেশগুলিতে এই সুবিধাগুলি পেত। তবে এবার আর সেটা পাবেনা রাশিয়া।এবাট ইউক্রেনের উপর এমন অমানবিক যুদ্ধের জেরে মস্কোর উপর একের পর এক আর্থিক নিয়ন্ত্রণ এবং বিধিনিষেধ আরোপ করা হচ্ছে। এবার ‘বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত দেশ’-এর স্বীকৃতিও হারাতে চলেছে। যার ফলে, আমেরিকা ও তার সহযোগী রাষ্ট্রগুলি তাদের দেশে রুশ পণ্যের দাম তাদের ইচ্ছা মতো বাড়াতে পারবে। এরফলে এই ধরনের পণ্যের ক্রেতার সংখ্যা কমবে। এবং বিক্রি কমায় রুশ অর্থনীতি বড়সড় ক্ষতির মুখে পড়বে।সূত্রের দ্বারা খবর, গতকাল ইউক্রেনের উপর হামলা করে রাশিয়া।.

আমেরিকা ও তার সহযোগীরা এখনও এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি।

মধ্য ইউক্রেনের একটি শহরে রকেট হামলা করা হয় রুশ বায়ুসেনার তরফে। যারফলে অনেকের মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে । যেখানে হামলা করা হয়েছে তার খুব কাছেই একটি আবাসন এবং একটি কিন্ডার গার্ডেন স্কুল রয়েছে। যাতে মনে করা হচ্ছে মৃতের সংখ্যা অনেক।সম্প্রতি রাশিয়ার উপর একাধিক বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। তারপরও এখনও রাশিয়া থেকে ইউরোপের দেশগুলিতে তেল সরবরাহ সম্পূর্ণ বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদেমির জেলেনস্কি অনুরোধ করেন, যাতে অবিলম্বে ইউক্রেনের আকাশকে নো ফ্লাই জোন(No Fly Zone) হিসেবে ঘোষণা করা হোক। কিন্তু, আমেরিকা ও তার সহযোগীরা এখনও এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি।

অপরদিকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে (Vladimir Putin) একঘরে করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন (Joe Biden)। বাইডেন বলেন রাশিয়া কখনোই ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ জিতবে না । তিনি আরও বলেন পুতিন হয়তো ইউক্রেনের দুই একটি শহরের দখল নিতে পারেন। তবে তিনি দেশের শাসক হতে পারবেন না । বাইডেন বলেন, ” ইউক্রেনের বিরুদ্ধে পুতিন যে জয়লাভ করবেন না, এত দিনে সেটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।”মার্কিন প্রেসিডেন্ট রাশিয়াকে সতর্ক করে বলেন, “পুতিন যা করছেন, তার বড় মূল্য চোকাতে হবে তাঁর দেশকে। তিনি ইতিমধ্যেই ইউক্রেনের অন্তত ২০ লাখ বাসিন্দাকে শরণার্থী বানিয়েছেন। আজ তিনি বিশ্বের শান্তি নষ্ট করছেন।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে এবার এই পথেই হাঁটছে আমেরিকা সহ তার সহযোগী দেশ

আজ যদি আমরা রুখে না দাঁড়াই, তবে আমেরিকার বাসিন্দাদের আরও বড় মূল্য দিতে হতে পারে।এখন প্রশ্ন মোস্ট ফেবারিট নেশন কি? এটি আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এক ধরনের চুক্তি। বিশ্বের যে সমস্ত রাষ্ট্র বিশ্ব বাণিজ্য সংগঠনের সদস্য, তাদের মধ্যেই এই চুক্তি সম্পাদিত হয়। যারফলে সংশ্লিষ্ট দেশগুলি বেশ কিছু বিশেষ সুবিধা ভোগ করে। তাদের আমদানি ও রফতানি শুল্কে ছাড় দেওয়া হয় এবং বিদেশের বাজারেও একটি নিয়ন্ত্রিত দামে পণ্য বিক্রি হয়। এই চুক্তির মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী পণ্যকে বাজারজাত করার প্রক্রিয়া আরও সহজ ও সুলভ করা হয়। এবং কোনও দেশকে এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হলে সেই দেশের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য থেকে যা আয় হয় সেটি বড় ধাক্কা খায়। রাশিয়ার বিরুদ্ধে এবার এই পথেই হাঁটছে আমেরিকা সহ তার সহযোগী দেশ ।

রাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক চাপ আরও বাড়বে আমেরিকা সহ সহযোগী দেশ

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: