25 C
Kolkata
Monday, December 5, 2022
বাড়িদেশ বিদেশমাওবাদী নেতার মুক্তির দাবিতে স্টেশনের মাঝে বিস্ফোরণ

মাওবাদী নেতার মুক্তির দাবিতে স্টেশনের মাঝে বিস্ফোরণ

কাল রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ চিচাকি ও করমাবাদ হল্ট স্টেশনের মাঝে ডাউন লাইনে বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা । তারপরেই তড়িঘড়ি ধানবাদ-গয়া রুটে সমস্ত ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয় । বিস্ফোরণের কিছুক্ষনের মধ্যে লক্ষ্মীপুরের কাছে আনন্দপুর গ্রামে মোবাইল টাওয়ার উড়িয়ে দেওয়া হয় । তারপর গিরিডির মধুবন থানার অন্তর্ভুক্ত ডুমরি-গিরিডি রোডে থাকা একটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় । আজ সকালেও তারা থেমে থাকেনি বিরনি থানার গারাগুরুতে একটি রাস্তা তৈরির মেশিনে আগুন ধরিয়ে দেয় মাওবাদীরা । একের পর এক মাওবাদী হামলায় গোটা ঝাড়খণ্ড জুড়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে । মনে করা হচ্ছে এই সমস্ত ঘটনার পিছনে কয়েকজন নয় বরং গোটা একটি সংস্থা আছে যারা একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মানুষের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করছে ।

সূত্রের দ্বারা খবর , ঘটনাস্থল থেকে মাওবাদী পোস্টার উদ্ধার করা হয়েছে । যেই স্থানে এই বিস্ফোরণ হয় সেটি ঝাড়খণ্ডের গিরিডির কাছে । এই ঘটনার পরেই সেইমুখো সমস্ত ট্রেনকে ঘুরিয়ে অন্য জায়গা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয় । এই ঘটনার পিছনে কারা রয়েছে তার তদন্ত করা হচ্ছে ।এই ঘটনার পর রেল দপ্তর সতর্ক হয়ে যায় । অনেক ট্রেন বাতিল করে দেওয়া হয় এবং অনেক ট্রেন এর রুট বদল করে দেওয়া হয় । ধানবাদ শাখায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে । যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সমস্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ।জানা যাচ্ছে , নয়া দিল্লি- ভুবনেশ্বর রাজধানী এক্সপ্রেস, নয়া দিল্লি – শিয়ালদহ রাজধানী এক্সপ্রেস , নয়া দিল্লি- হাওড়া রাজধানী এক্সপ্রেস , সহ বেশ কিছু ট্রেন রুট বদল করে পাটনা – ঝাঁঝাড় রুটে চালানো হবে ।

দুই শীর্ষ মাওবাদী নেতার মুক্তির দাবিতে বনধের ডাক দেয় ও জায়গায় জায়গায় বিস্ফোরণ ঘটায়

বাতিল করা হয়েছে দেহরি অন সোন – ধানবাদ এক্সপ্রেস , গয়া – আসানসোল প্যাসেঞ্জার ট্রেন , আসানসোল – বারাণসী প্যাসেঞ্জার ট্রেন । যার ফলে যাত্রীরা বিপাকে পড়েছেন । কিন্তু রেল তরফে বলা হচ্ছে সবার আগে যাত্রীদের নিরাপত্তা তারপর অন্যকিছু ।২১ থেকে ২৭ জানুয়ারি মাওবাদীরা প্রতিরোধ দিবসের ডাক দেয় । প্রথম দিনেও তারা জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভ করে । এবং আজ শেষ দিনে নিজেদের অস্তিত্ব প্রমাণের জন্য বিহার ও ঝাড়খণ্ডে দুই শীর্ষ মাওবাদী নেতার মুক্তির দাবিতে বনধের ডাক দেয় ও জায়গায় জায়গায় বিস্ফোরণ ঘটায় । এই বনধের জেরে ঝাড়খণ্ডের ১৬টি মাওবাদী উপদ্রুত ও বিহারের ১০টি মাওবাদী উপদ্রুত জেলায় প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে । পরিস্থিতি যাতে খারাপের দিকে না যায় সেই দিকে নজর রাখছে তারা । এবং প্রয়োজনে আরো পুলিশ মোতায়েন করা হবে বলে জানা যাচ্ছে ।

মাওবাদী নেতার মুক্তির দাবিতে স্টেশনের মাঝে বিস্ফোরণ

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: