25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িদেশ বিদেশকেশবপ্রসাদকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য চাপ

কেশবপ্রসাদকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য চাপ

কেশবপ্রসাদের যোগী মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া নিয়ে টানাপড়েন চরমে।আদিত্যনাথ যোগীর প্রথম মন্ত্রিসভায় দুইজন উপমুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে একজন ছিলেন কেশবপ্রসাদ মৌর্যভ।কিন্তু এ বারের নির্বাচনে তিনি হেরে যান ফলে কেশবপ্রসাদের যোগী মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া নিয়ে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।রাজ্যের ওবিসি ভোটের কথা মাথায় রেখে কেশব প্রসাদকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য চাপ দিচ্ছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।রাজ্য বিজেপি সভাপতি তথা ওবিসি নেতা স্বতন্ত্র দেও সিংহকে কেশবের পরিবর্তে স্থান দেওয়ার কথা ভেবেছেন।এমত অবস্থায় লাখনউতে সমাজবাদী পার্টির নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটের অন্যতম শরিক ওমপ্রকাশ রাজভড়ের সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি ফের এনডিএ-র শরিক হতে পারে বলে জল্পনা শুরু হয়েছে।

সূত্রের খবর,যোগীর মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন দলের প্রধান ওমপ্রকাশ রাজভড়। সব কিছু ঠিক চললে, আগামী ২৫ মার্চ পরপর দু’বার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিতে চলেছেন আদিত্যনাথ যোজ।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, জেপি নড্ডা, অমিত শাহ, রাজনাথ সিংহের মতো বিজেপি শীর্ষ নেতা সহ পাশাপাশি বিরোধী নেতাদের মধ্যে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। তথা কংগ্রেসের রাহুল গান্ধী, প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরা, সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ যাদব, বহুজন সমাজ পার্টির মায়াবতীকে।সূত্রের মতে, যোগীর মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে চলেছে ৫৭ জন বিধায়ক। কিন্তু মন্ত্রিসভা গঠনের আগেই দুই উপমুখ্যমন্ত্রীর পদকে দেখা দিয়েছে এক গভীর জল্পনার।প্রথম বার যোগীর মন্ত্রিসভায় এক জন উপমুখ্যমন্ত্রী ছিলেন রাজ্যে বিজেপির ওবিসি মুখ কেশবপ্রসাদ মৌর্য।এক সময়ে মুখ্যমন্ত্রিত্বের দৌড়েও ছিলেন ওই ওবিসি নেতা।

কিন্তু যোগী মুখ্যমন্ত্রী হওয়ায় পর তাকে উপমুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নেয় বিজেপির নেতৃত্ববৃন্দ।তিনি হেরে যাওয়াতে তাঁকে উপমুখ্যমন্ত্রী করতে নারাজ যোগী শিবির।যোগী শিবিরের নেতাদের বক্তব্য, স্বতন্ত্র দেও সিংহ জনপ্রিয় ওবিসি নেতা।রাজ্য সভাপতি হিসাবে দলের এ বারের জয়ের পিছনে তিনি এক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছেন।তা ছাড়া যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে সুষ্ঠু তালমিল রয়েছে স্বতন্ত্র দেওয়ের।এই সকল কারণের জন্য তাঁকে উপমুখ্যমন্ত্রী হিসাবে চান যোগী।অন্য দিকে, দিল্লির কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বের একাংশ কেশবপ্রসাদ মৌর্যের উপরেই ভরসা রাখছেন।দীর্ঘ দিনের পুরনো নেতা কেশবপ্রসাদ হেরে গেলেও ওবিসি সমাজের উপর ভাল নিয়ন্ত্রণ রয়েছে তাঁর।নির্বাচনের ফলাফল থেকেই স্পষ্ট যে, পূর্বাঞ্চলের ওবিসি সমাজের একটি বড় অংশ মুখ ফিরিয়েছে বিজেপি থেকে।

দীনেশ শর্মা ছিলেন গত মন্ত্রিসভায় যোগী সরকারে দ্বিতীয় উপমুখ্যমন্ত্রী

এই আবহে কেশবপ্রসাদ যদি নিজেকে গুটিয়ে নেন, সে ক্ষেত্রে আগামী লোকসভায় দলের ওবিসি ভোটব্যাঙ্কে ধস আরও বাড়বে।বিজেপি সূত্রের মতে,সেই কারণে কেশবপ্রসাদকে পুরনো পদে রেখে দিতেই বার্তা দেওয়া হয়েছে যোগী শিবিরকে। দীনেশ শর্মা ছিলেন গত মন্ত্রিসভায় যোগী সরকারে দ্বিতীয় উপমুখ্যমন্ত্রী। ব্রাহ্মণ ওই নেতাকেও ওই পদ থেকে সরিয়ে সংগঠনে নিয়ে আসার কথা ভেবেছে বিজেপি।তার পরিবর্তে ব্রাহ্মণ সমাজের নেতা তথা লখনউ ক্যান্টনমেন্ট আসন থেকে জয়ী বিধায়ক ব্রজেশ পাঠককে উপমুখ্যমন্ত্রী করার কথা নিয়ে আলোচনা চলছে। সূত্রের মতে, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে এনডিএ জোটের প্রাক্তন ওই দলকে ফের মন্ত্রিসভায় নিতে রাজি হয়েছে বিজেপি। জল্পনা ছড়িয়েছে বিরোধী জোটের অন্যতম শরিক ওমপ্রকাশ রাজভড়ের যোগী মন্ত্রিসভায় যোগ দেওয়া নিয়েও।ওমপ্রকাশের দাবি, তাঁর দলের এনডিএ-তে যোগদানের কোনও সম্ভাবনাই নেই।

কেশবপ্রসাদকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য চাপ

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: