25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িরাজনীতিআসানসোল ও বালিগঞ্জে এপ্রিল মাসে উপনির্বাচন

আসানসোল ও বালিগঞ্জে এপ্রিল মাসে উপনির্বাচন

আবারও রাজ্যে ভোটের দিন ঘোষণা । আসানসোল ও বালিগঞ্জে এপ্রিল মাসে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন আসানসোল ও বালিগঞ্জের উপনির্বাচনের সময় ঘোষণা করলো।১২ই এপ্রিল আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবং বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রেও একই দিনে উপনির্বাচন আছে । ১৬ এপ্রিল হবে ভোটগণনা। দুই কেন্দ্রের ভোটের জন্য চলতি মাসের ১৭ তারিখ মনোনয়ন জমা দেওয়া শুরু হবে। আর ২৪ মার্চ মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ । মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৮ মার্চ। বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে আবারও ভোট হবে। অন্যদিকে বাবুল সুপ্রিয় ইস্তফা দেওয়ায় আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রে আবার ভোট হবে।

জানা যাচ্ছে, পশ্চিমবঙ্গের একটি লোকসভা এবং একটি বিধানসভা কেন্দ্র ছাড়াও ১২ এপ্রিল ছত্তীসগঢ়ের খৈড়াগঢ় বিধানসভা কেন্দ্র, বিহারের বোচাহান বিধানসভা কেন্দ্র এবং মহারাষ্ট্রের কোলাপুর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রেও উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২০২১ সালের নভেম্বর মাসে বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু হয় । তিনি ৭৫ বছর বয়সে এসএসকেএম(SSKM) হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বালিগঞ্জ কেন্দ্র থেকে দাঁড়িয়ে ভোটে যেতেন তিনি। তারপর তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভায় পঞ্চায়েত মন্ত্রী হন । কিছুদিন পরেই তিনি অসুস্থ হন এবং শেষমেষ মৃত্যু হয় তার। এই কারণে আবারও বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে।

অপরদিকে ১৮ সেপ্টেম্বর বিজেপির ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। জানা যাচ্ছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন তিনি। বাবুল সুপ্রিয় আসানসোলের বিজেপি সাংসদ ছিলেন। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে আসানসোল কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে দাঁড়িয়ে জয়ী হন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি প্রধানমন্ত্রীর মন্ত্রী সভার সদস্যও ছিলেন। তবে মোদীর মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণের সময় বাবুলকে মন্ত্রিত্ব পদ থেকে বাদ দেওয়া হয় । এরপর তিনি বিজেপি ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগ দেন। এবং সাংসদ পদও ছেড়ে দেন । এরফলে আসানসোল কেন্দ্রটি অভিভাবক শূন্য হয়ে পড়ে। এবার ১২ এপ্রিল এই আসনে ভোট হবে। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে, প্রত্যেকটি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ইভিএম ছাড়াও ভিভিপ্যাটও ব্যবহার করা হবে।

উপনির্বাচনে কোরনা বিধি মানার উপরে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে

এবং উপনির্বাচন যাতে ঠিকমতো হয় তার জন্য সমস্ত ব্যবস্থা কমিশন করে রেখেছে। বর্তমানে কোরনা গ্রাফ অনেকটাই কমে আছে । কিন্তু টাতেও কমিশন কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না। ফলে উপনির্বাচনে কোরনা বিধি মানার উপরে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। শারীরিক দূরত্ববিধি মানার পাশাপাশি, মাস্ক, ফেস শিল্ড ও স্যানিটাইজ়ারের ব্যবহারের উপর জোর দেওয়া হচ্ছে। বলা হচ্ছে,যদি কোনও প্রার্থী বা কোনও দল কমিশনের গাইডলাইনগুলি না মানেন, তাহলে ওই প্রার্থী বা দলকে আর কোনও সভা সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না। শুধু তাই নয় কোনও তারকা প্রচারকও যদি কোরনা বিধি লঙ্ঘন করেন তাহলে তাঁকেও প্রচার করতে দেওয়া হবে না এই দুই লোকসভা ও বিধানসভা কেন্দ্রে । অর্থাৎ শুধু ভোট নয় মানুষের স্বাস্থ্যের ডিজেও বিশেষ নজর দিচ্ছে কমিশন।

আসানসোল ও বালিগঞ্জে এপ্রিল মাসে উপনির্বাচন

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: