25 C
Kolkata
Thursday, December 1, 2022
বাড়িরাজনীতিঅনুব্রতকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মেরে ফেলা হতে পারে,চাঞ্চল্যকর মন্তব্য স্বপন মজুমদারের

অনুব্রতকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মেরে ফেলা হতে পারে,চাঞ্চল্যকর মন্তব্য স্বপন মজুমদারের

অনুব্রত মণ্ডল নামটা তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতাদের মধ্যে অন্যতম। এই নামতি বাক্য বোমায় প্রখ্যাত। বর্তমানে তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁকে নিয়ে বিরোধী নেতৃবৃন্দরা একের পর এক সুর তুলছেন। এই আবহে এবার অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে চাঁদপাড়ায় এক পথসভায় চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করলেন বনগাঁ দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক স্বপন মজুমদার। তিনি বলেন ‘অনুব্রত মণ্ডলকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মেরে দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।’ তিনি আরও বলেন, “বগটুই কাণ্ড আমরা দেখেছি। ১০ জন মানুষকে অসহায় অবস্থায় পুড়িয়ে মারা হয়েছে। পেট্রোল দিয়ে জ্বালিয়ে মারা হয়েছে। আর তার যে মাস্টারমাইন্ড, সেই অনুব্রত মণ্ডল এখন পেট ফুলিয়ে উডবার্ন ওয়ার্ডে শুয়ে রয়েছেন। আমার তো মনে হয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর উডবার্ন ওয়ার্ড থেকে তাঁকে আর ফিরতে দেবেন না। কারণ যে কুকেচ্ছা আছে, সব অনুব্রত মণ্ডল সব উগরে দিতে পারেন সিবিআই-এর কানে। তাহলে ভাইপো থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সব বড় বড় রাঘব বোয়ালরা জেলে যাবেন।”

তার এই মন্তব্য ঘিরে ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এ প্রসঙ্গে বনগাঁ তৃণমূল সভাপতি গোপাল শেঠ বলেন, “ওঁ তো সেই লেভেলেরই লিডার নন। অনুব্রত মণ্ডল কীভাবে তাঁর জায়গায় একচ্ছত্র রাজনৈতিক আধিপত্য চালান, তা সিবিআই নিজে দেখছে। অনুব্রতর কী হবে, সেটা বলার মতো যোগ্যতা তো ওই নেতারই নেই। তাঁদের তো সুকান্তবাবুদের মতো লোকই কোনও কথা বলতে পারলেন না, তাহলে ও কে বলার। একটি মিথ্যা কেস করিয়ে সিবিআই-কে দিয়ে তদন্ত করানো হচ্ছে। যিনি বলছেন, তিনি তো নিজেই একজন নারকোটিকের আসামী ছিলেন। বিজেপিকে টাকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন। সিবিআই তো পাল্টা ওঁকে প্রশ্ন করবে, ওঁ কীভাবে জানলেন অনুব্রতকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দেওয়া হবে?” তিনি জানিয়েছেন স্বপন মজুমদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন। পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি গোবিন্দ দাস এ ব্যাপারে মন্তব্য করেন যে, “অত্যন্ত ভিত্তিহীন কথা। এই সব কথা বলার কোনও প্রয়োজন নেই। আইন আইনের পথেই চলবে। ভ্রান্ত ধারণা নিয়ে রাজনীতি করতে চাইছে স্বপন মজুমদার। মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা।”

কোন তথ্যের ভিত্তিতে স্বপন মজুমদার একথা বললেন

কোন তথ্যের ভিত্তিতে স্বপন মজুমদার একথা বললেন? তার কোনও ব্যাখ্যা বিজেপি বিধায়কের কাছ থেকেও মেলেনি। গুরুতর অসুস্থ তৃণমূলের প্রবল প্রতাপশালী নেতা অনুব্রত মণ্ডল। অণ্ডকোষ এবং শ্বাসকষ্টের নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে তাঁর। এসএসকেএম-এর উডবার্নে ভর্তি রয়েছেন তিনি। এই অবস্থায় সিবিআই-এর দফতরে হাজিরা দিতে যাননি অনুব্রত মণ্ডল। সিবিআই-এর কাছে হাজিরা না দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বিরোধীরদের একাধিক কটাক্ষের স্বীকার হয়েছেন। বিরোধীরদের বক্তব্য, সিবিআই হাজিরা এড়াতেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অনুব্রত। পীযূষ রায় এসএসকেএমের সুপার জানিয়েছেন, অনুব্রত মণ্ডলের শরীরে বেশ কিছু জটিলতা রয়েছে। তাঁর শরীরে নতুন উপসর্গ দেখা দিয়েছে। তাঁর দুটি অণ্ডকোষে পুঁজ জমেছে। চিকিৎসকরা সেই পুঁজ বার করার কথা চিন্তাভাবনা করছেন। সূত্র মারফত খবর চিকিৎসকরা জানিয়েছেন দ্রুত তাঁর অপারেশন করা হবে।

অনুব্রতকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মেরে ফেলা হতে পারে,চাঞ্চল্যকর মন্তব্য স্বপন মজুমদারের

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: