25 C
Kolkata
Friday, February 3, 2023
বাড়িরাজ্যগরমের ছুটির পরেই ছাত্রছাত্রীদের দেওয়া হবে নীল-সাদা রং এর পোশাক

গরমের ছুটির পরেই ছাত্রছাত্রীদের দেওয়া হবে নীল-সাদা রং এর পোশাক

এর আগে বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয় রাজ্যের সমস্ত স্কুলের ছাত্র- ছাত্রীদের পোশাকের রং হবে নীল-সাদা। রাজ্য সরকারের এই নির্দেশ মতো সরকারি ও সরকার পোষিত স্কুলের প্রাক্ প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের পোশাকের রং হতে চলেছে নীল-সাদা। স্কুলের প্রধানশিক্ষদের তরফে বলা হয়েছে, গরমের ছুটির পরেই পড়ুয়ারা সেই পোশাক হাতে পাবে । তাঁরা জানাচ্ছেন, পোশাকের রং বদল সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি ইতিমধ্যে শিক্ষা দফতর থেকে স্কুলগুলিতে চলে এসেছে। এই কাজের সাথে যুক্ত স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হলেই স্কুলে এসে মাপ নিয়ে যাবে । এই সমস্ত কাজ মেটানোর পর পোশাক তৈরি করে পড়ুয়াদের হাতে তুলে দিতে দিতে গরমের ছুটি পেরিয়ে যাবে বলেই মনে করছেন প্রধানশিক্ষকরা।উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হচ্ছে ২৭ এপ্রিল। এবং গরমের ছুটি পড়ছে ২৪ মে থেকে।

এ বার প্রাক্‌ প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত নীল-সাদা পোশাক হবে

প্রধান শিক্ষকরা বলছেন, উচ্চ মাধ্যমিক শেষ হওয়ার পরেই পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণির সামগ্রিক মূল্যায়ন পরীক্ষা হবে। সেই সময়ে সমস্ত পড়ুয়াকেই স্কুলে আসতে হবে। তখনই পড়ুয়াদের পোশাকের মাপ নেওয়া হবে । উত্তর কলকাতার সরস্বতী বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা জয়তী মজুমদার মিত্র বলেন, “স্কুল খুলে গিয়েছে ফেব্রুয়ারি মাসের ৩ তারিখে। তারপর থেকে অনেক ছাত্রী অপেক্ষা করছে, কবে নতুন পোশাক দেওয়া হবে। কারণ, অনেকেরই পোশাক ছোট হয়ে গিয়েছে। আর্থিক ভাবে দুর্বল পড়ুয়ারা স্কুলের পোশাকের জন্য অপেক্ষা করছে। আবার যাদের পোশাক কেনার সামর্থ্য আছে, কিন্তু পোশাক ছোট হয়ে গিয়েছে তাদের নতুন পোশাক না কিনে একটু অপেক্ষা করতে বলেছিলাম।কারণ অনেক দিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল, এ বার প্রাক্‌ প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত নীল-সাদা পোশাক হবে। এখন অনেক পড়ুয়াই পোশাক কবে মিলবে, সেই প্রশ্ন করছে।’’

কিন্ত অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পোশাকের রং নীল-সাদা করা হবে কেন তানিয়ে বিতর্ক এখনও রয়ে গিয়েছে

শিক্ষা দফতরের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রাক্‌ প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ছেলেদের জন্য একটি হাফ শার্ট, একটি ফুল শার্ট, একটি হাফ প্যান্ট এবং একটি ফুল প্যান্ট দেওয়া হবে। সেই জামার রং হবে সাদা ও প্যান্টের রং হবে নেভি ব্লু। মেয়েদের যেমন আগে টিউনিক ও স্কার্ট, সালোয়ার, কামিজ এবং ওড়না ছিল, তা-ই থাকবে। শুধু রং বদলে হবে সাদা ও নেভি ব্লু। কিন্ত অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পোশাকের রং নীল-সাদা করা হবে কেন তানিয়ে বিতর্ক এখনও রয়ে গিয়েছে। মিত্র ইনস্টিটিউশন, ভবানীপুর শাখার প্রধান শিক্ষক রাজা দে বলেন, ‘‘সব স্কুলের পোশাকের রং এক হয়ে গেলে স্কুলগুলির এত দিনের পোশাকের ঐতিহ্য নষ্ট হয়ে যাবে। তাই সব স্কুলের পোশাকের রং নীল-সাদা করার বিরোধিতা করেছিলাম আগেই। তবে ভাল লাগছে এটা ভেবে যে, অন্তত নবম থেকে দ্বাদশের পড়ুয়াদের স্কুলের পোশাকের রং আগে যা ছিল, সেটাই রাখা যাবে। এতে স্কুলের পোশাকের স্বাতন্ত্র্য কিছুটা হলেও বজায় থাকবে।’’

বেহালা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক দেবাশিস বেরা বলেন, ‘‘উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হলেই আমাদের স্কুলে পোশাকের মাপ নেওয়ার কাজ শুরু হবে। সব পোশাক বানাতে এক মাস লেগেই যাবে।’’ তিনি বলেন, তাঁদের স্কুলের কাছেই আর একটি স্কুল আছে। তাদের পোশাকের রং আলাদা ছিল। ফলে রাস্তাঘাটে দুই স্কুলের পড়ুয়াদের সহজেই চেনা যেত। স্কুল শুরুর আগে রাস্তায় কোনও পড়ুয়া গড়িমসি করলে তাকে সহজেই চেনা যেত। এ বার সেটা সম্ভব হবে না। পড়ুয়ার মুখ মনে রাখলে একমাত্র বোঝা যাবে সে আমাদের স্কুলের কি না। ওই নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। তবে ঘোষণার পর এই নির্দেশ মতো পোশাকের  বাধ্যতামূলকরং ভাবে পাল্টাতে হবে প্রতিটা স্কুলকেই।

গরমের ছুটির পরেই ছাত্রছাত্রীদের দেওয়া হবে নীল-সাদা রং এর পোশাক

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: