25 C
Kolkata
Sunday, September 25, 2022
বাড়িরাজনীতিরাজনীতি বড্ড জটিল হয়ে গিয়েছে, আমি খাপ খাওয়াতে পারছি না: দেব

রাজনীতি বড্ড জটিল হয়ে গিয়েছে, আমি খাপ খাওয়াতে পারছি না: দেব

নিজস্ব সংবাদদাতা,অর্পিতা মন্ডল- একজন অভিনেতা হিসেবে তিনি যে চূড়ান্ত সফল সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে রাজনীতিতেও তিনি হয়ে উঠেছেন ‘সৌজন্য বোধের নেতা’। তার কথায়,”আমার সব প্রচার গুলো দেখবেন,আমি সৌজন্যের রাজনীতি করি”।

গত মঙ্গলবার বসিরহাট দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী সপ্তর্ষী বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে প্রচারে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানের জনসভায়ই এক বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তৃণমূল সাংসদ দীপক অধিকারী তথা দেব। তিনি বললেন,”রাজনীতি বড্ড জটিল হয়ে গিয়েছে, আমি খাপ খাওয়াতে পারছি না”।

জনতার উদ্দেশ্যে বলেন,‘‘মানুষের সুখ-দুঃখে পাশে থাকবে এমন সরকার ক্ষমতায় থাকা উচিত। বিশ্বাস করুন আজকের রাজনীতি একদম আলাদা হয়ে গিয়েছে। তাই দিদি (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) যদি আমাকে এই নির্বাচনে প্রার্থী হতে বলতেন, আমি হতাম না। কারণ আজকের রাজনীতি বড্ড জটিল। আমি খাপ খাওয়াতে পারছি না, বুঝেই উঠতে পারছি না এটা কিসের নির্বাচন?”

তার মতে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে। মানুষকে বোঝাতে বলেন, “ভোট নেওয়ার জন্য হিন্দু নেতারা হিন্দুদেরকে বলছে আপনারা সুরক্ষিত নন, আপনারা আমাদেরকে ভোট দিন, আমরা আপনাদের সুরক্ষিত রাখব। মুসলমানদের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটছে। আমার মাথায় আসছে না, তবে কে সুরক্ষিত আছে এই দেশে? হিন্দু-মুসলমান দু’পক্ষই যদি বলেন, কেউ সুরক্ষিত নন, তাহলে কারা সুুরক্ষিত? ভাবুন! আসলে আমাদের দেশে সুরক্ষিত সেই নেতারা, যাঁরা সবাইকে বোকা বানিয়ে ভোট নিয়ে যান। হিন্দু-মুসলিম লড়াই বাঁধান।”

লকডাউনের সময়ের সেই ভয়ঙ্কর চিত্রের কথা এদিন মনে করিয়ে দেন দেব, তিনি বলেন, ”সম্মানীয় হিন্দু নেতারা লকডাউনের সময় কোথায় ছিলেন? লক্ষ-লক্ষ শ্রমিক বন্ধুরা যখন পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন, খেতে পাচ্ছিলেন না, বাড়ি যেতে পারছিলেন না, কোথায় ছিলেন তখন এই নেতারা? আজ আমি সাধারণ মানুষের তরফ থেকে দু’পক্ষের নেতাদের জিজ্ঞেস করছি, যখন আপনাদের প্রয়োজন ছিল কোথায় ছিলেন? সেইসময় তাঁরা কেন ছিলেন না বলুন তো! তখন নির্বাচন ছিল না, যদি থাকতেন, তাহলে তাঁরা ভোট চাইতে ঠিক পৌঁছেই যেতেন। আমার মনে হয় না, নিজেকে বড় করতে গেলে কখনও কাউকে ছোট করার প্রয়োজন আছে, তাই আমি মনে করি, আমরা আমাদের কিছু কাজের কথা বলব। বিরোধী দল তাদের কিছু কাজের কথা বলবে। যে দলকে পছন্দ তাদের আপনারাই বেছে নেবেন। শুধু একটু ভেবে ভোট দেবেন, যাতে যে দল মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে থাকবে, তারাই সরকার গঠন করে সকলের পাশে থাকতে পারে”।

কাজেই তিনি যে সত্যিই ‘সৌজন্য-বোধের নেতা’ সে কথা বারবার প্রকাশ পাচ্ছে তার সব কটি নির্বাচন সভায়।

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: