25 C
Kolkata
Sunday, September 25, 2022
বাড়িরাজ্যকলকাতা"বাবাকে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে মারলো মেয়ে"

“বাবাকে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে মারলো মেয়ে”

নিজস্ব সংবাদদাতা, অর্পিতা মন্ডল- এমন রোমহর্ষক ঘটনা খুব কমই দেখা যায়। কন্যা সন্তান নাকি বাবার প্রিয় হয়। এমনটাই বলে সমাজ। কিন্তু সেই কন্যাই এমন কাজ করতে পারে তা মানা হয়তো একটু কঠিন।

গত রবিবার এমনটাই ঘটেছে ট্যাংরার ক্রিস্টোফার রোডের বাসিন্দা বিশ্বনাথ আঢ্যের সাথে। তার মেয়ে পিয়ালী আঢ্যর বিরুদ্ধে উঠে এসেছে এই মর্মান্তিক অভিযোগ। রবিবার সকালে চাঁদপাল জেটির কাছে একটি পার্ক থেকে ৫৬বছর বয়সি বিশ্বনাথ বাবুর মৃত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

বিশ্বনাথ বাবু একটি প্রিন্টিং হাউসে কাজ করতেন। সপ্তাহে রোজগার এক হাজার টাকা। বিশ্বনাথ বাবুর মেয়ে পিয়ালীর বছর তিনেক আগে বিয়ে হয়। কিন্তু স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় বছর খানেক আগেই সে বাবার কাছে চলে আসে। কিন্তু এখানে এসেও সমস্যায় পড়েছিল পিয়ালী।

পুলিশ সূত্রের খবর, টাকা পয়সা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিশ্বনাথ বাবু মেয়েকে নির্যাতন করায় রাগের বশে সে বাবাকে খুন করেছে। গত শনিবার রাতে অতিরিক্ত মদ্যপানে বেহুঁশ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর পিয়ালী তাকে ট্যাক্সি করে নিয়ে আসে চাঁদপাল ঘাটে। মদ্যপ অবস্থায় বিশ্বনাথ বাবু পড়ে যান পার্কে। সেই সময় সঙ্গে আনা কেরোসিন তেল বাবার গায়ে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় মেয়ে। বাবার শরীর পুরোপুরি পুড়ে যাওয়ার পর সে এলাকা ছাড়ে।

রবিবার সকালে চাঁদপাল ঘাটের পাশে পার্ক থেকে পুলিশ মৃত দেহ উদ্ধার করেন। পুলিশ সিসি টিভির ফুটেজ দেখে ঘটনা জানতে পারেন। দেহের পাশে পড়ে থাকা ম্যানিব্যাগ থেকে একটি ডায়রি পায় পুলিশ। সেখান থেকেই ফোন নম্বর যোগার করেই জানা যায় ঐ ব্যাক্তির নাম বিশ্বনাথ আঢ্য। এরপর বিশ্বনাথ বাবুর ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ খুনের মামলা রুজু করে। পিয়ালী কে আটক করে জেরা করায় সে জানায়, বাবাকে খুন করেছে সে। বাবার রোজগারের টাকা তার হাত দিয়েই খরচ হতো। খরচের হিসাব নিয়ে মারধরও করতো সে। তাই আর সহ্য করতে না পেরে এই কান্ড ঘটায় সে।

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: