25 C
Kolkata
Sunday, September 25, 2022
বাড়িখেলাক্রিকেটবিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পরাজয়ের পরে দলে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিলেন ভারত অধিনায়ক...

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পরাজয়ের পরে দলে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি

‘উপযুক্ত মানসিকতা সম্পন্ন ক্রিকেটার’কে দলে নেওয়ার বার্তা দিয়েছেন বিরাট কোহলি

নিজস্ব প্রতিবেদন- বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পরাজয়ের পরে দলে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি । ‘উপযুক্ত মানসিকতা সম্পন্ন ক্রিকেটার’কে দলে নেওয়ার বার্তা দিয়েছেন তিনি। পরোক্ষে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফাইনালে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ভিকে।

ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি বলেছেন, ‘আমাদের দলকে আরও শক্তিশালী করে তোলার জন্য কী করতে হবে, তা নিয়ে পর্যালোচনা দরকার। কোনও নির্দিষ্ট ঘরানায় যাতে আমরা আটকে না পড়ি, তা নিশ্চিত করতে হবে। দেখতে হবে, কীভাবে খেললে তা দলের কাজে আসবে। একই সঙ্গে চেষ্টা করতে হবে নির্ভীক ক্রিকেট খেলার। পারফরম্যান্স করার মতো উপযুক্ত মানসিকতা সম্পন্ন ক্রিকেটারদের সুযোগ দেওয়ার সময় এসেছে।’

প্রথম ইনিংসে ২১৭ রানের পর ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে শেষ হয়েছিল ১৭০ রানে। কোহলি এই দুই ইনিংসের ব্যর্থতা নিয়ে বলেছেন, ‘কীভাবে আরও বেশি রান করা যায়, তা নিয়ে স্ট্র্যাটেজি ঠিক করা জরুরি। খেলার রাশ হাতের বাইরে যেন চলে না যায়, তা দেখতে হবে। মনে হয় না, টেকনিকের দিক থেকে আমাদের বড় কোনও সমস্যা রয়েছে। তবে ম্যাচের পরিস্থিতি সম্পর্কে আরও সচেতন হওয়া দরকার। আরও সাহসী হতে হবে ব্যাটিংয়ের সময়। বিপক্ষ বোলারদের চাপে ফেলতে হবে। একই জায়গায় দীর্ঘক্ষণ ধরে বল করতে দেওয়া চলবে না। অবশ্য এই টেস্টের প্রথম দিনের মতো মেঘলা পরিবেশ থাকলে কিংবা বল সামনে স্যুইং করলে অন্য কথা।’

চেষ্টা করতে হবে স্কোরবোর্ড সচল রাখার

কীভাবে ব্যাট করা উচিত তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক। কোহলির মতে, ‘চেষ্টা করতে হবে স্কোরবোর্ড সচল রাখার। কঠিন পরিস্থিতিতে আউট হয়ে যেতে পারি, এটা ভাবলে চলবে না। রানের গতি বজায় রাখতে পারলে তবেই বিপক্ষকে চাপে ফেলা সম্ভব। আউট হব না মাথায় রেখে খেললে বেশিক্ষণ টেকা কঠিন। দক্ষ বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে অঙ্ক কষে ঝুঁকি নিতেই হবে।’

বিরাট অবশ্য কোনও সতীর্থের নাম করেননি। তবে তাঁর এই মন্তব্যের অভিমুখ চেতেশ্বর পূজারার দিকে বলে মনে করা হচ্ছে। দুই ইনিংসেই প্রচুর বল খেলেছেন তিনি। কিন্তু সেই অর্থে রান করতে ব্যর্থ। তাঁর অতিরক্ষণাত্মক ব্যাটিং দলের মনোবলে আঘাত করছে বলেও অনেকের অভিমত।

এক টেস্টের ফাইনাল একদমই পছন্দ ছিল না ভারত অধিনায়কের। তাঁর মতে, অন্তত তিন টেস্টের সিরিজ হওয়া উচিত ছিল। তাহলে ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে পরের ম্যাচে লড়াইয়ে ফেরার সুযোগ থাকত বলে মনে করেন তিনি।

কোনও নির্দিষ্ট ঘরানায় যাতে আমরা আটকে না পড়ি, তা নিশ্চিত করতে হবে:

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: