25 C
Kolkata
Tuesday, November 29, 2022
বাড়িস্বাস্থ্যঅন্যান্য রাজ্যে ভ্যাকসিনের ডোজ নষ্ট হলেও উজ্জ্বল ব্যতিক্রম পশ্চিমবঙ্গ

অন্যান্য রাজ্যে ভ্যাকসিনের ডোজ নষ্ট হলেও উজ্জ্বল ব্যতিক্রম পশ্চিমবঙ্গ

নিজস্ব সংবাদদাতা,অর্পিতা মন্ডল- দেশজুড়ে ভ্যাকসিনের ঘাটতি। তার উপর নষ্ট হচ্ছে টিকার লক্ষ লক্ষ ডোজ। সেই পরিসংখ্যান দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে কেন্দ্রের। উদ্বেগজনক প্রবণতার মধ্যেও উজ্জ্বল ব্যতিক্রম পশ্চিমবঙ্গ ও কেরল। দুই রাজ্যেই কোনও ভ্যাকসিন ডোজ নষ্ট হয়নি।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু করেছে কেন্দ্র। আর তারপর থেকে গত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গোটা দেশে নষ্ট হয়েছে মোট ৪৪ লক্ষ ভ্যাকসিন ডোজ। সবথেকে বেশি পরিমাণ টিকা নষ্ট করেছে ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর দুই রাজ্য—তামিলনাড়ু এবং হরিয়ানায়।

সম্প্রতি তথ্য জানার অধিকার আইনে (আরটিআই) সমাজকর্মী বিবেক পান্ডের দায়ের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে এই পরিসংখ্যান জানিয়েছে মোদি সরকার।
গেরুয়া শিবিরের ভাষায়, কেন্দ্রে ও রাজ্যে বিজেপির সরকার এলেই কাজ হবে ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর গতিতে। অথচ বাস্তবে দেখা যাচ্ছে উল্টো ছবি। একদিকে, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাতের মতো একের পর এক ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর রাজ্যে করোনা চিকিৎসা কার্যত বিশ বাঁও জলে।

আবার অন্যদিকে, ভ্যাকসিন নষ্টের ক্ষেত্রেও শীর্ষে হরিয়ানা ও তামিলনাড়ুর মতো এনডিএ শাসিত রাজ্য! তামিলনাড়ুতে টিকার ১২ শতাংশ ডোজ নষ্ট হয়েছে। হরিয়ানায় ৯ শতাংশ। পাঞ্জাব, মণিপুর, তেলেঙ্গানায় ৮ শতাংশ। এই সময়কালে সবথেকে বেশি ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে মহারাষ্ট্রে। সেখানেও এত বেশি ডোজ নষ্ট হয়নি—মাত্র ৩ শতাংশ।

উত্তরপ্রদেশে ভ্যাকসিন ডোজ নষ্ট হওয়ার পরিমাণ ৫ শতাংশের বেশি। গুজরাতে প্রায় ৪ শতাংশ। কারণ? যথেষ্ট সতর্কতা ও যত্নশীলতার অভাব। এদিকে, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভ্যাকসিন নেওয়ার চাহিদাও এখন মাত্রাতিরিক্ত। স্বাভাবিকভাবেই শুরু হয়েছে টিকা-সঙ্কট। ঘাটতি মেটাতে ইতিমধ্যেই বিদেশি আরও একঝাঁক ভ্যাকসিনকে ভারতে ব্যবহারের অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

%d bloggers like this: